উন্নত মানের এলার্জি ঔষধ এর নাম ও দাম সহ | এলার্জি এন্টিবায়োটিক

উন্নত মানের এলার্জি ঔষধ এর নাম ও দাম সহ এলার্জি এন্টিবায়োটিক ও স্কিন এলার্জি ঔষধ এছাড়া এলার্জির ট্যাবলেট  শরীরে যখন চুলকানি জনিত সমস্যা তৈরি হয় তখন তাকে অ্যালার্জি বলা হয়। এলার্জি হলে মানুষের শরীরে বিভিন্ন রকমের সমস্যা তৈরি হতে থাকে।


এলার্জি ঔষধ এর নাম,চোখের এলার্জি ঔষধ এর নাম,এলার্জি ঔষধ এর নাম বাংলাদেশ,মুখের এলার্জি ঔষধ এর নাম,এলার্জি ঔষধ এর নাম স্কয়ার,এলার্জি ঔষধ এর নাম হোমিওপ্যাথি,এলার্জি এন্টিবায়োটিক ঔষধ এর নাম,এলার্জির সবচেয়ে ভালো ঔষধ,স্কিন এলার্জি ঔষধ বাংলাদেশ,স্কিন এলার্জি ঔষধের নাম,স্কিন এলার্জি ক্রিম নাম
উন্নত মানের এলার্জি ঔষধ এর নাম ও দাম সহ | এলার্জি এন্টিবায়োটিক | স্কিন এলার্জি ঔষধ


এলার্জি ঔষধ এর নাম বাংলাদেশ


এলার্জির প্রধান লক্ষণ গুলো হল: চুলকানি হওয়া, লাল লাল ছোপ দেখা দেওয়া, শরীরের বিভিন্ন জায়গা লাল হয়ে ফুলে যাওয়া, সর্দি অথবা নাক বন্ধ হয়ে আসা ইত্যাদি।

এলার্জির কারণে সারা বছর ঠান্ডা, কাশি লেগে থাকতে পারে। এটি মানুষের জীবনকে অতিষ্ঠ করে তোলে। শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলার্জি থেকে মুক্তির জন্য মানুষ ডাক্তারের শরণাপন্ন হয়। 


আপনি যদি এলার্জি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক এলার্জি ওষুধ এর নাম গুলো কি কি।

স্কিন এলার্জি ঔষধ বাংলাদেশ

বাজারে বিভিন্ন ধরনের এলার্জির ওষুধ পাওয়া যাচ্ছে। বাজারে বিভিন্ন ধরনের এলার্জির ক্রিমও পাওয়া যায়। ক্রিম ব্যবহার করেও আশানুরূপ ফল পেতে পারেন। স্কিন এলার্জি ঔষধ এর নাম গুলো হল:

  • Alatrol (এলাট্রল) ১০ mg এর মূল্য ৳২৭.১৪ টাকা।
  • CTZ (সিটিজেড) ১০ mg এর মূল্য প্রতি পিস ৳২.০০ টাকা।
  • Allegra M (অ্যালিগ্রা এম) ১২০ মিলিগ্রাম, প্রতি পিস ৬.০২ টাকা।
  • Claritin (ক্লারিটিন)
  • এলার্জি আর রোলি অফ
  • বিনাড রিং ইত্যাদি।


এলার্জি ঘরোয়াভাবে ও নিরাময় করা সম্ভব। শরীরের সামান্য এলার্জির প্রকোপ দেখা দিলে ঘরে বসে সমাধান নেওয়া উচিত। কিন্তু এলার্জির প্রকোপ বেশি হলে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হবে।

স্কিন এলার্জি ঔষধ নাম ২


যে বস্তুতে এলার্জি রয়েছে সেটি এড়িয়ে চলা উচিত। বিভিন্ন ওষুধের মাধ্যমে ও এলার্জি যথেষ্ট সমস্যা তৈরি হতে পারে। তাই এলার্জি আক্রান্ত ব্যক্তিদের যেকোনো কিছু ব্যবহার করার আগে সচেতন হওয়া উচিত।

 সাবান এবং ডিটারজেন্ট ব্যবহারেও সচেতনতা অবলম্বন করতে হবে। আর এলার্জির প্রকোপ মারাত্মক পর্যায়ে চলে গেলে স্কিন এলার্জি ঔষধ সেবন করতে হবে। স্কিন এলার্জি ঔষধ এর নাম হল:


১. 
Rupadin (রুপাডিন) ১০ mg এর মূল্য ১০৯.০২ টাকা। Product Details জেনে নিন



২. Vitamin A and Zinc (ভিটামিন এ অ্যান্ড জিংক) Unit মূল্য 
৳১.৯০ টাকা এবং  (Zinc = ২০ mg মূল্য ৩১.৫০ টাকা)

৩. Carotenoids (ক্যারোটি নয়েড) Unit মূল্য ৳২.৫০ টাকা 

৪. Allium (অ্যালিয়াম)

৫. SBL Asterias Rubens Delusion (এসবিএল এস্টেরিয়াস রুবেনস ডিলুশন) 

৬. A D E L 73 Mucan Drop (এ ডি ই এল ৭৩ মুকান ড্রপ) এর মূল্য ৳৪০০ টাকা

৭. Delusion (ডিল্যোসিন) ১০ মিলিগ্রাম বাজার মূল্য ৭০ টাকা।

See also  স্কিন এলার্জি ঔষধের নাম | স্কিন এলার্জি থেকে মুক্তির উপায়

৮. Antioxidants (অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট) Unit মূল্য ৳৪.০০ টাকা ( ৩০ প্যাক ১২০ টাকা )


স্কিন এলার্জি থেকে মুক্তি পেতে হলে অবশ্যই নিজেদের সচেতনতা অবলম্বন করা উচিত। এলার্জি থেকে মুক্তি পেতে হলে ধুলাবালি এড়িয়ে চলতে হবে। সাবান এবং ডিটারজেন্ট ব্যবহারে অতীব মাত্রায় সচেতনতা অবলম্বন করতে হবে।

এলার্জি এন্টিবায়োটিক ঔষধ এর নাম 


আসুন একটি তালিকার মাধ্যমে এলার্জি এন্টিবায়োটিক ঔষধ এর নাম এবং এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে জেনে নেওয়া যায়:

এলার্জি ঔষধ নাম ব্রান্ড নাম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া
নেফসিলিন ইউনিপেন গ্যাস এবং ডায়রিয়ার সমস্যা হতে পারে।
অক্সাসিলিন প্রোস্টাপলিন গ্যাসের সমস্যা হতে পারে।
পেনিসিলিন জি পেনটিডস ঘুম ঘুম সমস্যা তৈরি হতে পারে।
পেনিসিলিন ভি পেন-ভি-কে দীর্ঘদিন সেবন করলে ব্রেন এবং কিডনি ড্যামেজ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে

এলার্জির ক্ষেত্রে প্রথমে ই এন্টিবায়োটিক শুরু করা উচিত নয়। এলার্জির সমস্যা তৈরি হলে প্রথমে ঘরোয়া চিকিৎসা নিন। পরবর্তীতে যদি বিশেষজ্ঞ ডাক্তার আপনাকে এন্টিবায়োটিক ঔষধ সেবন করার পরামর্শ দেন তাহলেই নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে এন্টিবায়োটিক এর কোর্স শেষ করুন। 

এন্টিবায়োটিক এর কোর্স শেষ হয়ে গেলে পরবর্তীতে ডাক্তারের নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত আর এন্টিবায়োটিক চালিয়ে যাওয়া উচিত নয়।

গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট:

চুলকানির ট্যাবলেট এর নাম ও দাম

সারা গায়ে চুলকানি ঔষধ

উন্নত মানের স্কিন এলার্জি ঔষধ বাংলাদেশ


এলার্জি মোকাবেলায় প্রাথমিকভাবে অ্যান্টি হিস্টাসিন ঔষধ সেবন করা যেতে পারে। অ্যান্টিহিস্টাসিন গোত্রের অন্যান্য ওষুধগুলো হল: সিটি রিজাইন, লোরাটাডাইন, ফেক্সোফেনাডিন ইত্যাদি। এই ওষুধগুলো বাজারে কিছু ব্র্যান্ডের নামে কিনতে পাওয়া যায়। ব্রান্ডের নাম গুলো হল:

১. সিটি রিজাইন

  • এসিআই
  • স্কয়ার
  • বেক্সিমকো
  • একমি
  • ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল
  • অপসোনিন
  • ইবনে সিনা
  • এস কে এফ
  • এরিস্টোফার্মা
  • নাভানা

২. লোরাটাডাইন

  • ইবনে সিনা
  • স্কয়ার
  • একমি
  • অপসোনিন
  • ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল
  • ইনসেপ্টা
  • আদ দিন
  • অ্যাপোলো
  • এসিআই

৩. ফেক্সোফেনাডিন

  • একমি
  • বেক্সিমকো
  • এরিস্টোফার্মা
  • এস কে এফ
  • রেনাটা
  • ইনসেপ্টা
  • স্কয়ার
  • ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল

প্রত্যেক প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের জন্য সিটি রিজাইন অথবা লোরাটাডাইন ১০ মিলিগ্রাম এর একটি ট্যাবলেট প্রতিদিন খেতে হবে। এতে উপকার না পেলে ফেক্সোফেনাডিন ১২০ মিলিগ্রামের একটি ট্যাবলেট প্রতিদিন একটি করে খেতে হবে। ছোট বাচ্চাদের ক্ষেত্রে ডাক্তারের নিয়ম অনুযায়ী ঔষধ সেবন করাতে হবে।

স্কিন এলার্জি ঔষধের নাম, উপকারিতা

পেনসিভ মলম স্কিনের এলার্জির জন্য খুব ভালো কাজ করে। চুলকানি দূর করতে কার্যকর ভূমিকা পালন করে। চুলকানি কমানোর জন্য পেনসিভ মলম খুবই উপকারী।

  • ন্যাসিভিওন এলার্জি‌ ১২০ এম জি ট্যাবলেট এলার্জির জন্য কার্যকর ভূমিকা পালন করে। এই মলম গলা ব্যথা কমাতে, এলার্জিজনিত চোখ, ছিঁচকে চলা বা নাকের সমস্যা এবং তেজস্ক্রিয় ত্বক এর চিকিৎসায় ব্যবহার করা হয় ।

এলার্জি রোগের ক্ষেত্রে ওরাডিন নামের একটি ওষুধ ব্যবহার করা হয়। এটি স্কিনের অ্যালার্জি দূর করতে সহায়তা করে। যারা স্কিন এলার্জি ওষুধের নাম জানতে চেয়েছিলেন তারা ওরাডিন, পেনসিভ, এবং ন্যাসিভিয়ন ব্যবহার করতে পারেন।

স্কয়ার এলার্জির ঔষধ


এলার্জির ঔষধ এর ক্ষেত্রে স্কয়ার কোম্পানির ঔষধ খুবই জনপ্রিয়। স্কয়ার কোম্পানির তিনটি জনপ্রিয় এলার্জির ঔষধ রয়েছে। 

সেগুলো হলো: ফেক্সোফেনাডিন, লোড়াটাডাইন এবং সিটি রিজাইন। এই ঔষধ গুলো এলার্জি রোগের ক্ষেত্রে তাৎক্ষণিক কাজ করে এবং দীর্ঘমেয়াদী ভালো ফল দেয়।


বাজারে বিভিন্ন ধরনের এলার্জি ঔষধ এর মধ্যে স্কয়ার কোম্পানির এলার্জির ঔষধ অনেক বছর ধরে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে। বিভিন্ন ডাক্তার এলার্জি রোগের ক্ষেত্রে এই কোম্পানির নাম সাজেস্ট করে থাকেন। তাই এলার্জি রোগীরা চোখ বন্ধ করে এই কোম্পানির ঔষধ ব্যবহার করতে পারে।

See also  দাউদের সাবানের নাম ও দাম সহ | উন্নতমানের সাবান

মুখের এলার্জি ঔষধ এর নাম


মুখের এলার্জির ক্ষেত্রে ন্যাসিভিওন (Nasivion) এলার্জি‌ ১২০ এম জি এই ট্যাবলেটটি দিনে একটি করে খেতে পারেন। এটি মুখের এলার্জি রোধ করার পাশাপাশি গলা ব্যথা, খিটখিটে চোখ, তৈলাক্ত ত্বক ইত্যাদি চিকিৎসায় ব্যবহার করা হয়।

গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট:

আরো উন্নত মানের ত্বকের এলার্জির ঔষধ


ত্বকের এলার্জির ঔষধ গুলো হলো:

  • মিডারমা স্কিন কেয়ার ২০ গ্রাম (জেল) ২০ গ্রাম টিউব এর মূল্য পড়বে ৳৯৯০ টাকা।

  • ডলাবি ট্যাবলেট, একসঙ্গে থাকে চারটা। এই চারটার মূল্য একসঙ্গে পড়বে ৳২০০ টাকা।

  • এন্টিওজি ডান্ট ট্যাবলেট,এর মোট ওজন হল ৬ গ্রাম+২০০ গ্রাম+৫০ গ্রাম। এর মোট মূল্য হলো ৳৮১.৩২ পয়সা।

  • ফেক্সোফ্যানারডিন ট্যাবলেট, ১২০ গ্রাম। মোট মূল্য ৳৫৯.৫০ পয়সা।

  • অ্যালিগরা এলার্জি ট্যাবলেট, এর মোট ওজন ১২০ গ্রাম এবং মূল্য ৳৫৪ টাকা।

  • এলাট্রল ট্যাবলেট এর ওজন ১০ গ্রাম এবং মূল্য ৳২৭ টাকা।

  • টেল ফাস্ট ট্যাবলেট এর ওজন ১২০ গ্রাম এবং মূল্য ৳৯২ টাকা

চোখের এলার্জি ঔষধ এর নাম, ড্রপ


চোখের এলার্জি মোকাবেলায় চোখের যত্ন নিতে হবে। বারবার চোখে হাত দেওয়া এবং কন্ট্রাক্ট লেন্স ব্যবহার করা এড়িয়ে চলতে হবে। ধুলো থেকে চোখ বাঁচানোর জন্য সানগ্লাস ব্যবহার করতে পারেন।

অতি ক্ষুদ্র পোকামাকড় থেকে চোখ সুরক্ষিত রাখার জন্য প্রতিদিন ঘর এবং বিছানা পরিষ্কার করুন। গৃহপালিত পশুদের সঙ্গ ত্যাগ করুন। চোখের এলার্জি মোকাবেলার জন্য ডাক্তার কিছু ওষুধের নাম সাজেস্ট করে থাকেন। ঔষধ গুলোর নাম হল:

  • অ্যান্টি-হিস্টামাইনস: এটি চোখে চুলকানি এবং জ্বালাভাব কমাতে কার্যকর ভূমিকা পালন করে।

  • মাস্ট সেল স্টেবিলাইজার: এই ঔষধটি চোখের জলাভাব কমায় এবং চুলকানি প্রতিরোধে সাহায্য করে।

  • ডিকনজেসট্যান্ট চোখের ড্রপ: এই ড্রপটি চোখের ভেতরের লালচে ভাব এবং চোখের ফোলা ভাব কমাতে সাহায্য করে।

  • কর্টিকোস্টেরয়েড চোখের ড্রপ: এই ড্রপটি চোখের অতিরিক্ত জ্বালা কমাতে সাহায্য করে।

  • ইমিউনথেরাপি ইনজেকশন: এই ইনজেকশনটি এলার্জি সৃষ্টিকারী পদার্থের বিরুদ্ধে কাজ করে এবং এলার্জি প্রতিরোধে সাহায্য করে।

চোখে এলার্জি দেখা দিলে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের মত অনুযায়ী ঔষধ অথবা ড্রপ ব্যবহার করতে হবে। কারণ সংবেদনশীল জায়গায় ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে। আশা করি আপনারা চোখের ঔষধ এর নাম জানতে পেরেছেন।

গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট:

স্কিন এলার্জি ঔষধের নাম 

স্কিন এলার্জি থেকে মুক্তির উপায়


মাথায় এলার্জি ঔষধ


ত্বকের মতো মাথায় এলার্জির সমস্যা দেখা দিতে পারে। সেক্ষেত্রে অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার ব্যবহারে ভালো ফল পাওয়া যায়। অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার এবং পানি একসাথে মিশ্রিত করে নিয়মিত মাথায় ব্যবহার করলে ভালো ফল পাওয়া যায়। 

সপ্তাহে অন্তত দুই দিন শ্যাম্পু দিয়ে গোসলের পর অ্যাপেল সিডার ভিনেগার মাথার ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন। তবে মাথায় এলার্জির পরিমাণ বেশি হলে কিছু ঔষধ ব্যবহার করা যেতে পারে। ঔষধগুলো হল:

  • Ketozole (কেটোজল) ২০০ মিলিগ্রাম এর মূল্য ১৪০ টাকা।
  • Select Plus (সিলেক্ট প্লাস) মূল্য ৩৩০ টাকা

মাথায় এলার্জি সমস্যা বেশি হলেই শুধুমাত্র মাথায় এলার্জি ঔষধ গুলো ব্যবহার করা যেতে পারে। কিন্তু অল্প এলার্জি বা অল্প চুলকানির জন্য ঘরোয়া উপাদান ব্যবহার করবেন। 

See also  কিডনি ভালো আছে কিনা বোঝার উপায় | কিডনির পয়েন্ট কত হলে ভালো

ঘরোয়া উপাদানের মধ্যে রয়েছে ঠান্ডা পানি, নিয়মিত খাদ্যাভ্যাস, লেবুর রস, অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার, নারিকেল তেল ইত্যাদি। তবে ঔষধ ব্যবহার করার আগে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হবে।


নাকের এলার্জি ঔষধ


নাকের এলার্জির ক্ষেত্রে সাধারণত ধুলা-ময়লা এবং অপরিষ্কার জিনিস ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বাদ দিতে হবে। নাকের এলার্জি ঔষধ এর নাম গুলো হল:


  • থুজা ওসি ২০০: এটি ব্যবহারে নাক দিয়ে পানি পড়া এবং নাকের চুলকানি তাৎক্ষণিকভাবে কমে যাবে। এই ঔষধটি মাথাব্যথা প্রতিরোধে সাহায্য করে।

  • আয়নালথাস গ্লান্ডুলাস ৪ এক্সঃ এলার্জি ইনফেকশন এর হাত থেকে রক্ষা পেতে এই ঔষধটি ব্যবহার করতে পারেন। ইনফেকশন রোধ করা ছাড়াও এলার্জি মোকাবেলায় ঔষধটি ভালো কাজ দেয়।

  • ইউফ্রেসিয়া ৬ এক্সঃ এই ঔষধটি ব্যবহারে চোখের জ্বালাপোড়া ভাব, নাক দিয়ে পানি পড়া, এলার্জির কারণে নাক চুলকানো ইত্যাদি রোগ থেকে মুক্তি পাবেন বলে আশা করি।

  • যুগ্লান ৪ এক্সঃ এই ঔষধটি এলার্জি যেই চামড়ায় হয় সেই চামড়াটি সরিয়ে ফেলতে সাহায্য করে। নাকের চামড়া এবং নাকের মাংসে এলার্জি দেখা দিলে এই ঔষধটি ব্যবহার করতে পারেন।



এলার্জি ঔষধের নাম হোমিওপ্যাথি

এলার্জিতে ব্যবহৃত হয় এমন কিছু হোমিওপ্যাথি ঔষধের নাম হলো:


১. কার্বো ভেজ

২. সালফার

৩. নাক্স ভোম

৪. আর্সেনিক

৫. আর্জেন্টাম নাইট্রিকাম

৬. লেপিস এল্বা

৭. নেট্রাম মিউর

৮. পালসেটিলা

৯. লাইকোপেডিয়াম

১০. ডলিকস

১১. এপিস মেল 

১২. আর্টিকা ইউরেন্স

১৩. জাস্টিসিয়া অটোটেডা

১৪. সোরিনাম

১৫. ডালকামারা

১৬. পেট্রোলিয়াম

১৭. থুজা

১৮. সিপিয়া

১৯. এরান্থাস

২০. হিস্টামিন ইত্যাদি।


আশা করি আপনারা এলার্জি ঔষধ এর নাম হোমিওপ্যাথি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট:

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার ৭টি উপায়

পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়ার ইসলামিক ৯টি উপায়


হামদর্দ এর এলার্জির ঔষধ


হামদর্দ এলার্জি ঔষধ এর মধ্যে মা জুন চূবচীনী দীর্ঘদিনের এলার্জি সমস্যা এবং চুলকানি দূর করতে সাহায্য করে। এই ওষুধটি বিভিন্ন প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে তৈরি। তাই এই ঔষধে তেমন কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই। 

বিভিন্ন প্রাকৃতিক উপাদানের নির্যাস দিয়ে মা জুন চূবচীনী ঔষধটি তৈরি হয় বলে দীর্ঘদিন ধরে এলার্জি রোগীর ক্ষেত্রে হামদার্দ এর এই ওষুধটি ব্যবহার করা হয়।

এলার্জি ঔষধ বেশি খেলে কি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে?


এলার্জির ওষুধ বেশি খাওয়া বা দীর্ঘদিন ধরে চালিয়ে যাওয়া উচিত নয়। এলার্জির ঔষধ বেশি খেলে ওজন বৃদ্ধি, রুচি বৃদ্ধি, মুখের শুষ্কতা ইত্যাদি তৈরি হতে পারে। 

এলার্জির ঔষধ একটি নেশার মতো কাজ করে। তার ফলে ঔষধ না খেলে রোগীর স্বস্তি পায় না। দীর্ঘদিন ধরে ঔষধ সেবন করলে কিডনি এবং লেবারের মতো গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গে সমস্যা দেখা দিতে পারে।


দীর্ঘদিন যাবত এলার্জির ওষুধ সেবন করলে রোগী শকে চলে যেতে পারেন এমনকি অজ্ঞান হয়ে যেতে পারেন। এই ধরনের মারাত্মক সংবেদনশীল পরিস্থিতি তৈরি হলে রোগী মারা যেতে পারে। তাই দীর্ঘদিন যাবত এলার্জির ঔষধ খাওয়া ঠিক নয়।

শেষ কথা:- 

এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাদের এলার্জি ঔষধ এর নাম জানানোর চেষ্টা করেছি। আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ মনোযোগ সহকারে পড়লে আশা করি আপনারা সব ধরনের এলার্জি ঔষধ এর নাম সম্পর্কে অবগত হবেন। 

এলার্জি হলে ঘরে বসে না থেকে ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ঔষধ সেবন করা জরুরি। এলার্জির ক্ষেত্রে খুঁজে বের করা জরুরী কোন পদার্থ বা কোন খাবার থেকে আপনার অ্যালার্জি তৈরি হচ্ছে। সেই ধরনের খাবার বা সেই জিনিস এড়িয়ে চলুন। আশা করি ভালো ফল পাবেন।